সোনাই নিউজ ডেস্ক: বাঙালির সাধারণত শেষ পাতে মিষ্টি ছাড়া চলে না। তার উপর আবার যদি হয় শীতকাল। তবে তো আর কথাই নেই। রুটির পর শেষ পাতে গুড় ছাড়া ভোজনরসিকরা কিছু ভাবতেই পারেন না। শীতের আমেজে তাড়িয়ে তাড়িয়ে গুড়ের স্বাদ উপভোগ করেন তাঁরা। গুড় খেয়ে শুধু যে মন ভরছে তা নয়।

গুড় খেলে আরও বেশি আকর্ষণীয়ও হয়ে উঠতে পারেন আপনি। তাই শীতের মরশুমে আরও মোহময়ী হয়ে ওঠার জন্য রোজ শেষ পাতে থাক গুড়। একটানা কয়েকদিন গুড় খাওয়ার পর নিজেই তফাত্‍টা বুঝতে পারবেন।

আপনি কি ব্রণর সমস্যায় জেরবার? বিভিন্ন কোম্পানির নানা ক্রিম মেখে কি আপনি বিরক্ত হয়ে গিয়েছেন? আপনার এই সমস্যা সমাধানে ব্রহ্মাস্ত্র হতে পারে গুড়। প্রতিদিন অল্প একটুখানি গুড় খেলেই আপনার ত্বকের হারানো জেল্লা ফিরে পেতে পারেন। শুধু তাই নয় মিটতে পারে ব্রণর সমস্যাও। এছাড়াও মুখে থাকা নানা দাগও পরিষ্কার হওয়ার অব্যর্থ দাওয়াই গুড়।

ঘুম থেকে উঠে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে কি আপনার মনে হয় বুড়িয়ে যাচ্ছেন? এই ভেবে আর কত সময় নষ্ট করবেন? সামান্য উপায়েই শেষ হতে পারে আপনার আক্ষেপের দিন। এবার থেকে রোজ একটু করে গুড় খাওয়া শুরু করুন। দিনকয়েকের মধ্যেই দেখতে পাবেন জাদু। দেখবেন গুড় খেয়েই ত্বকের বয়স কমে যাবে অনেকটাই। ফিরে পাবেন হারিয়ে যাওয়া ত্বকের জেল্লা।

চুল পরার সমস্যায় কি বিরক্ত হয়ে গিয়েছেন? তবে আপনার জন্য অব্যর্থ দাওয়াই হতে পারে গুড়। একটি পাত্রে মুলতানি মাটি নিন। তাতে দু’চামচ গুড় দিন। সামান্য মধুও দিতে পারেন। এবার সামান্য জল দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। প্রতিদিন নিয়ম করে এই মিশ্রণটি চুলে লাগান। দশ মিনিট রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন দিনকয়েকের মধ্যেই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন আপনি।

ত্বকের দাগছোপ দূর করার জন্য গুড়ের চেয়ে আর বেশি উপকারী বোধহয় কিছু হতেই পারে না। একটি পাত্রে টমেটোর রস নিন। তাতে এক চামচ গুড় দিন। কয়েক ফোঁটা পাতিলেবুর রস মেশান তাতে। এবার ওই মিশ্রণটি মুখে মাখুন। ১৫ মিনিট এই মিশ্রণটি গালে লাগান। এরপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহখানেক এই মিশ্রণটি ব্যবহারের পর তফাত্‍ নিজে চোখেই দেখতে পাবেন আপনি।

SHARE