ইরাকের হোরেন শেখান অঞ্চলের দারবান্দ-ই-বেলুলা ক্লিফে একটি পাথরের গায়ে খোদাই করা আছে মূর্তি। ভারতের অযোধ্যা সোধ সংগঠনের বিশ্বাস, সেই মূর্তিটি আসলে রামের। সেটি নিশ্চিত হওয়ার জন্য সম্প্রতি ইরাকে যায় ভারতের একটি প্রতিনিধিদল।

জানা গেছে, আনুমানিক দুই হাজার খ্রিস্টপূর্বে ওই মূর্তিটি খোদাই করা হয়। সেটি দেখে বোঝা যাচ্ছে, এক রাজা হাতে তীর-ধনুক নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন। আর তার কোমরে ভোজালি এবং তার পায়ের কাছে হাত জোড় করে বসে আছে কোনো এক প্রাণী। অযোধ্যা সোধ সংগঠনের পরিচালকের মতে, ওই প্রাণীটি প্রবল বলশালী হনুমান।

ইরাকে যাওয়া ভারতীয় প্রতিনিধিদের নেতৃত্বে ছিলেন ইরাকে নিযুক্ত ভারতীর রাষ্ট্রদূত প্রদীপ সিং রাজপুরোহিত। এছাড়া সেখানকার দূতাবাসের ভারতীয় কূটনীতিবিদ চন্দ্রমৌলি করণ, সুলেইমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসবিদরা এবং কুর্দিস্তানের ইরাকি রাজ্যপাল।

তবে ওই মূর্তিটি রামের বলে মানতে নারাজ ইরাকের ইতিহাসবিদ এবং প্রত্নতাত্ত্বিকরা। তাদের মতে, সেটি ইরানের পাহাড়ি প্রজাতিদের রাজা তারদুন্নির মূর্তি।-কালের কন্ঠ

SHARE