দেশের প্রথম হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী ড. মোহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক বলেন
বঙ্গবন্ধুর ডাকে গ্রাম-গঞ্জে মানুষ ও কৃষকরাও মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন

ইমরান হোসাইন, বিশেষ প্রতিবেদক:
কৃষিমন্ত্রী ড. মোহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘বাংলার দুঃখী মানুষ ও কৃষক-শ্রমিকদের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভালবাসা ছিল অকৃত্রিম।’ কৃষি দেশের সার্বিক অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কৃষির ওপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে বর্তমান শেখ হাসিনা সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় কৃষি উন্নয়নের জন্য দেশের প্রথম হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম নির্মাণ করা হয়েছে। এতে করে এ অঞ্চলের কৃষকরা উপকৃত হবে। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে গ্রাম গঞ্জে মানুষ ও মাঠের কৃষকরাও মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। আওয়ামীগ সরকারই কৃষকদের বাঁচিয়ে রেখেছেন। বিএনপি জামাত জোট সরকারের আমলে সারের জন্য অনেক কৃষককে প্রাণ হারাতে হয়েছে। সে সময় কৃষকদের সার কিনতো হতো ৯০ টাকায়, আর সে সার এখন ১৬ টাকা করেছে সরকার। রোববার (১১ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রামের আনোয়ারার বরুমছড়া ভরাশঙ্খ খালে নির্মিত হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভার্চুয়াল বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সাংসদ ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ বলেন, আগে বিদেশীরা আমাদেরকে তলা বিহীন ঝুঁড়ি মনে করত; এখন বাংলাদেশের ঝুঁড়িতে প্রচুর খাদ্য মজুদ আছে। আমরা এখন খাদ্য দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করতেছি। এদেশে কপি ও কাজু বাদামের চাষ হবে শীঘ্রই। এতে করে দেশে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রাও অর্জন হবে। বঙ্গবন্ধুর কন্যার হাত ধরে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ।

বিএডিসি’র চেয়ারম্যান মো. সায়েদুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নাসিরুজ্জামান, রাবার ড্যাম নির্মাণ প্রকল্প আরডিসিপি প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী ধীরেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথ এবং বরুমছড়া ইউনিয়ন আওয়ামীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন আমজাদীর যৌথ সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের সচিব ক্ষুদ্রসেচ মোহাম্মদ আরিফ, উপজেলা চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীগের সভাপতি অধ্যাপক এম.এ মান্নান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এম. মালেক, বরুমছড়া ইউপি চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেন চৌধুরী।

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধানে প্রায় ২১ কোটি টাকা ব্যয়ে উপজেলার বরুমচড়া ও বারখাইন ইউনিয়নের মাঝখানে ভরাশঙ্খ খালে নির্মিত হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম পাইলট প্রকল্প নামের এ প্রকল্পটির কাজ করেছে চীনা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বেইজিং ইওয়ার কর্পোরেশন-বিআইসি পক্ষে নির্মাণ কাজ করেছেন মেসার্স আবুল বশর সিভিল ওয়ার্ক।

এসময়ে অন্যান্যদের মধ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ জোবায়ের আহমেদ, থানার অফিসার ইনর্চাজ দুলাল মাহমুদ, আরামিট গ্রুপের চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য এস.এম আলমগীর চৌধুরী, অর্থ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন কন্ট্রাক্টর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহবুদ্দিন, শ্রমিকলীগের সভাপতি ও কাফকো সিবিএ সভাপতি জসিম উদ্দিন, বারশত ইউপি চেয়ারম্যান এম.এ কাইয়ূম শাহ্, দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু তাহেরসহ উপজেলার বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান, আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, শ্রমিকলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এটি দেশের প্রথম হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হওয়ায় লবাণাক্ত পানি থেকে রক্ষা পাওয়ার পাশাপাশি মিঠা পানি মজুদ রাখা সম্ভব হবে। উপজেলার মোট ২২শ হেক্টর জমি বাঁচবে এবং বাঁচবে কৃষকের জীবনও। ভরাশঙ্খ খালটি আছে উপজেলার বরুমচড়া ও বারখাইন ইউনিয়নের মাঝে। প্রায় ৪৯ হাজার ২শ ফিট (১৫ কিলোমিটার) লম্বা ও ১২০ ফিট চওড়া এখনো বিরাট খালটি উপজেলার ইছামতি খালের সঙ্গে মিলে আরও কটি ইউনিয়ন পেরিয়ে বরুমচড়া ও বারখাইন ইউনিয়নের দক্ষিণের সীমানা ঘেঁষে মিলেছে পাহাড়ি শঙ্খ নদে। বরুমচড়ার লোকেদের ভরা শঙ্খ মিলেছে বারখাইন ইউনিয়নে কাটাখালী খাল-এ।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে সাধারণ রাবার ড্যাম বহু থাকলেও এই প্রথম আনোয়ারায় নির্মিত হলো হাইড্রোলিক এলিভেটর ড্যাম। বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে চায়না প্রযুক্তি ব্যবহার করে প্রকল্পটির কাজ করছে ওই দেশের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বেইজিং ইওয়ার কর্পোরেশন-বিআইসি। সাধারণ রাবার ড্যামে ব্যাগ ব্যবহার করা হলেও এ ড্যামে লোহার প্যানেল ব্যবহৃত হবে যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। ফলে খাল দিয়ে লবণাক্ত পানি প্রবেশ করতে পারবে না। পাশাপাশি সারা বছর মিঠা পানি আটকে রাখা যাবে খালে। ড্যামের উভয় পাশে স্থাপন করা হয়েছে বসার জায়গা। সেখানে দর্শনার্থীরা বসে সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন।

 

SHARE